গ্রামীণফোনের খামখেয়ালীতে বিপাকে উলানিয়া, রনগোপালদীর সাধারন মানুষ

69

গ্রামীণফোনের অত্যাচারে অতিষ্ট এক গ্রাহক মিঠুন কুমার সৈকতের ফেসবুক স্টাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হলো-

সবার দৃষ্টি আকর্ষন করছি। পটুয়াখালী জেলা, গলাচিপা থানার, ৫ নং রতনদী তালতলী ইউনিয়নের, উলানিয়া বন্দর ও আশেপাশের কিছু বাজারে যতো গুলো ফ্লেক্সিলোড ব্যবসায়ী আছে তারা সবাই মনব বন্ধনের দিকে ঝুঁকে পরতেছে। কারন আমাদের এই উলানিয়া বাজার, ডাকুয়া বাজার এবং এর আশেপাশের স্থানের যতো লোকজন আছে তারা সবাই এই গ্রামীন টাওয়ারের উপর নির্ভরশীল। আর এই টাওয়ার অনেক দিন ধরেই অকেজো হয়ে আছে। আর এই ঘটনা সুজনা টেলিকমের মালিক সুক মিত্র গ্রামীনফোন কর্মকর্তাদের কাছে বার বার বলা স্বত্ত্বেও কোনো ধরনের সুফল হয় নি। গ্রামীনফোনের কতৃপক্ষ তারা নাকী বলে উলানিয়া বন্দর ও ডাকুয়া বাজারে আমাদের সিম, লোড এবং কার্ড বিক্রি না হলেও চলবে। এই কথা শোনার পরে উলানিয়া ও ডাকুয়ার যতো ফ্লেক্সিলোডের ব্যবসায়ী আছে তারা মিটিং করে একজোট হয়ে গ্রামীনফোনের সিম, লোড এবং কার্ড রাখা বন্ধ করে দিয়েছে। আর এখন সাধারন জনগন আছে মহা সমস্যায়। আবার এমনটাও বলে আমাদের মতো সাধারন গ্রাহক নাকী গ্রামীনফোনের কর্মকর্তাদের না হলেও চলবে। গ্রামীনফোনের অফিসার চোর গুলা এতো সাহস কোথায় পায়? আমাদের মতো সাধারন গ্রাহকের টাকা মাইরা আজ তোরা গলায় টাই ঝুলাইছো। আমাদের মতো সাধারন গ্রাহকের টাকা মাইরা তোরা আজ মাইক্রোতে করে হাওয়া বাতাস খেয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছো। আপনাদের উদ্দেশ্যে একটি কথাই বলতে চাই যদি নিজেদের ভালো চান তাহলে যতো তারাতারি সম্ভব হয় গ্রামীনফোনের টাওয়ার টি সঠিক ভাবে পুনর্গঠন করে আমাদের মতো সাধারন জনগনকে সেবা প্রদান করুন। তামাশা অনেক করছেন এখন ভালো মানুষের মতো টাওয়ারের ত্রুটি গুলো খুজে বের করে সঠিক ভাবে পুনর্গঠন করুন।

আরও খবর  একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পটুয়াখালী ৩ আসনে অপ্রতিদ্বন্ধী "আ খ ম জাহাঙ্গীর হোসাইন"