খবর নাই মাঠে, জিততে চান ভোটে (পটুয়াখালী-৩)

127
নৌকা

প্রচার প্রচারনায় এগিয়ে শাহজাদা সাজু,মাঠে নাই বিএনপি বিংবা তাদের অংগ সংগঠন। তবুও আশাবাদী বিএনপি। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পটুয়াখালী-৩ (দশমিনা-গলাচিপা) আসনে দেড় লাখ ভোট পেয়ে বিজয়ী হওয়ার ঘোষনা দিয়েছেন বিএনপি’র মনোনীত ধানের শীষের মার্কার প্রার্থী গোলাম পাওলা রনি। অপরদিকে আ’লীগের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী ব্যাপক ভোটে নিশ্চত বিজয় হবে বলে দাবী এস,এম,শাহজাদা সাজু । ১৯ডিসেম্বর দুপুর ২টা ৩৮মিনিটে গোলাম মাওলা রনির ফেসবুক পেজে আপলোড করা একটি ভিডিও থেকে এ তথ্য যানা যায় ।

৪ মিনিট ১ সেকেন্ডের ভিডিওতে তিনি আরও উল্লেখ করেন, ৩০ডিসেম্বরের নির্বাচনে জয় লাভ করবো। গোলাম মাওলা রনি বলেন, নির্বাচনের ওই তারিখে আমাদের শক্তিমত্তা, সামর্থ্য,কৌশলসহ সব কিছু আমরা প্রয়োগ করবো । জনগনের উদ্দ্যেশে বলেন ,আপনারা নিশ্চিন্তে থাকুন,বাংলাদেশের কারও সাধ্য নেই দশমিনা-গলাচিপার মাটিতে আপনাদের ভোটের অধিকার হরন করবে। তিনি আরও বলেন,দশমিনা-গলাচিপার ১শ’১৮টি ভোটকেন্দ্রের ভোটবাক্স , ব্যালট ছিনতাই ও ডাকাতির ন্যূনতম সম্ভাবনা নেই। ভোট শুরুর পূর্ব মুহুর্তে ব্যালট পেপার গননা করে বুঝে নিতে হবে। রনি আরও বলেন,৩০ডিসেম্ভর সকাল ৭টা/সাড়ে ৭টার মধ্যে নিজ নিজ ভোট কেন্দ্রে উপস্থিত হউন, ভোট দিনএবং ভোটের ফল ঘোষনা নাকরা পর্যন্ত ভোটকেন্দ্রে অবস্থান করুন।

আরও খবর  আমরা মরবো, সরবো না: আ স ম রব

রনির এ ভিডিও বক্তব্য সম্পর্কে জানতে চাইলে দশমিনা উপজেলা আ’লীগের সভাপতি আঃ আজিজ মিয়া বলেন কে কি বললো এটা আমাদের বিষয় নয় , নৌকা প্রতীকের প্রার্থী এস,এম, শাহজাদা সাজু ব্যাপক ভোটে নির্বাচিত হবে। উপজেলা আ’লীগের সাধারন সম্পাদক এ্যাড.সিকদার গোলাম মোস্তফা ও জেলা আ’লীগের অন্যতম সদস্য এ্যাড.ইকবাল মাহমুদ লিটন বলেন, রনি নির্বাচনে সাজুর সাথে ব্যাপক ভোটের ব্যাবধানে পরাজিত হবে ।

তবে ভোট কেন্দ্র পাহারার নামে ভোট কেন্দ্রে নৈরাজ্যের সৃস্টি করলে ,এর সমচিত জবাব দেবে আইন শৃংখলা বাহিনী , এমন মন্তব্য করেছেন দশমিনা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শাখাওয়াত হোসেন শওকাত। ভোট কেন্দ্রে যাহাতে সাধারন মানুষ নির্বিগ্নে ভোট কেন্দ্রে গিয়ে তাহাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারে,তাহার জন্য থাকবে কয়েক স্তরের নিরাপত্তা বেস্টনী জানালেন,দশমিনা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও রির্টনিং কর্মকর্তা শুভ্রা দাস। দশমিনা থানা অফিসার ইন চার্জ রতন কৃঞ্চ রায় চৌধুরী বলেন,ভোট কেন্দ্রসহ এর আশ পাশ এলাকার আইন শৃংখলা নিয়ন্ত্রনে রাখতে এবং যে কোন পরিস্থিতি মোকাবেলায় আইন শৃংখলা বাহিনী সদা সর্বদা প্রস্তুত থাকবে।