ভোলায় মাদ্রাসা শিক্ষকের উপর হামলা

48

ভোলা প্রতিনিধিঃ ভোলা বোরহানউদ্দিন উপজেলায় হাসাননগর ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের মাদ্রাসা শিক্ষক জসিমুল হক চৌধুরীকে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মো: রাফেজ চৌধুরী গং কর্তৃক পিটিয়ে মারাক্তক আহত করার অভিযোগ রয়েছে।
অভিযোগকারী সুত্রে জানায়, বিগত অনেকদিন ধরেই মাদ্রাসা শিক্ষক মো: জসিমুল হক চৌধুরীরকে কোন কারন ছাড়ই জোরপুর্বক বিভিন্ন বিষয়ে ঝামেলা করতে চাইতো মো: রাফেজ চৌধুরী ও তার গং। এরই জেরধরে গত বৃহস্পতিবার বিকাল ৪টায় মো: রাফেজ চৌধুরী জসিম চৌধুরীর বাড়িতে টেন্ডারের এ.ডি.বি’র পাকা রাস্তার কাজ করার সময় জসিম চৌধুরী তাহার ঘরের সামনে কাজ না করার জন্য নিষেধ করলে মো: রাফেজ চৌধুরী (৩৫) পিতা-মো: নুরুল হক চৌধুরী, মো: হালিম চৌধুরী (৫৫) পিতা-মৃত সামছল হক চৌধুরী, মো: পারভেজ চৌধুরী (৩২) পিতা-নুরুল হক চৌধুরী, মো: পাবেল চৌধুরী ও মো: পায়েল চৌধুরী পিতা-মো: হালিম চৌধুরী, মো: নুরুল হক চৌধুরী পিতা-মৃত সাসছল হক চৌধুরী মিলে পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী মো: জসিম চৌধুরীকে রড ও দেশীয় অস্ত্র দিয়ে পিটিয়ে মারাত্বক আহত করে। পরে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে উদ্ধার করে বোরহানউদ্দিন হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত ডাক্তার গুরতর আহত জসিমুল হক চৌধুরীতে উন্নত চিকিৎসার জন্য ভোলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন।
এ ব্যাপারে আহত জসিম চৌধুরীর ছেলে মুরাদ চৌধুরী অভিযোগ করে বলেন তারা পরিকল্পিতভাবে আমার পিতাকে হত্যার জন্য হামলা করে, আমরা ও বাড়ির অন্য লোকজন এগিয়ে না আসলে আমার পিতাকে প্রানে মেরে ফেলত। এ ব্যাপারে আমরা থানায় মামলা দায়ের করেছি। আমরা ন্যায় বিচার চাই।
এ ব্যাপারে মো: রাফেজ চৌধুরীর কাছে ঘটনার সত্যতা জানতে চাইলে তিনি ঘটনার বিবরণ সময় সাপেক্ষে জানাবেন বলে ফোনটি কেটে দেন।
সামাজিক সংগঠন একতা ফাউন্ডের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান রাজিব হায়দার এ বিষয়ে বলেন, শিক্ষকের উপরে জোরপুর্বক এ হামলা অবশ্যই অমানবিক। আমি এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদসহ দোষীদের শাস্তির দাবি জানাই।