ভোলার চরফ্যাশনে নারী নির্যাতন….

90

বিশেষ প্রতিনিধি (ভোলা) || ভোলার চরফ্যাশন উপজেলায় দুলারহাট থানার ২ নং নীলকমল ওয়ার্ডে স্ত্রীর উপর গরম দা ছ্যাকা দিয়ে অমানসিক নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে। গত মঙ্গল বার ( ৯ অক্টোবর ) বিকাল ৩ টা ৩০ মিনিটের সময় স্বামী মোঃ জামাল গরম দা দিয়ে তাকে নির্যাতন করে। গরম দা ছ্যাকা দিয়ে রিক্তা বেগম (২২) এর হাতে মুখে শরিরে গুরুতর ছ্যাকা দিয়ে ক্ষত বিক্ষত করে।
আজ নীলকমল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আলমগির হোসেন হাওলাদার ঘটনা স্থলে গিয়ে সত্যতা পেয়ে দুলারহাট থানা পুলিশ কে খবর দিলে থানা পুলিশ রিক্তা বেগম কে চরফ্যাশন হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠিয়ে দেন।
জানা যায়, ইসলামী শরীয়াহ মোতাবেক চরফ্যাশন উপজেলার আমিনাবাদ ইউনিয়নের হোসেনের মেয়ে রিক্তা বেগমের সাথে দুলারহাট থানার নীলকমল ইউনিয়নের আঃ হানিফ এর ছেলে জামাল বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন।
বিবাহের পর থেকে রিক্তা বেগমকে মারধর ও মৌখিকভাবে নির্যাতন করে আসছে বলে রিক্তা বেগম এ প্রতিবেদক কে জানান। পরিশেষে রিক্তা কে গত মঙ্গল বার (৯ অক্টোবর ) বিকাল সারে তিনটার সময় জামাল দা ছ্যাকা দিয়ে রিক্তার শরিরের বিভিন্ন স্থানে ক্ষত বিক্ষত করেন।
স্থানীয় লোক জনের সহযোগিতায় শুক্রবার ১২.৩০ মিনিটের সময় নীলকমল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আলমগির হোসেন হাওলাদার দুলারহাট থানা পুলিশ কে খবর দিলে দুলারহাট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মিজানুর রহমান পাটওয়ারী নেতৃত্বে ওসি তদন্ত নওশের আলী, এস আই সাদ্দাম, এস আই সিদ্দিক, এ এস আই শহিদ সহ সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে পাশন্ড স্বামী জামাল কে দফায় দফায় অভিযান চালিয়ে আটক করেন এবং স্ত্রী রিক্তা কে পাশন্ড স্বামীর হাত থেকে উদ্ধার করে উন্নত চিকিৎসার জন্য চরফ্যাশন সদর হাসপাতাল পাঠিয়ে দেন।
ইতিমধ্যে দুলারহাট থানা পুলিশ ঐ আসামিকে আইনের আওতায় নিয়ে এসেছেন।এবং জেলে প্রেরনের প্রস্তুতি চলছে।